ব্রেকিং নিউজ

বাবার দ্বিতীয় বিয়েতে যাওয়ার জন্য সাজিয়ে দিয়েছিলেন মা

প্রাক্তন স্ত্রী অমৃতা সিংয়ের সঙ্গে সইফের সম্পর্ক যে তিক্ততার পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল তা অজানা নেই কারোরই। ২০০৪ সালে অমৃতার সঙ্গে আইনি বিচ্ছেদ হয় অমৃতার। তার আট বছর পর করিনাকে বিয়ে করেছিলেন সইফ। বাবা–মায়ের এই তিক্ততা প্রভাব ফেলেছিল সদ্য কৈশরে পা রাখা সারার জীবনেও। প্রথমদিকে এই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারতেন না তিনি। কফি উইথ করণ চ্যাট শোয়ে সইফ–করিনার সম্পর্ক নিয়ে খোলামেলাই উত্তর দিলেন সইফ তনয়া সারা আলি খান। 
বলিউডে সদ্য পা রেখেছেন সারা। সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে অভিনীতি কেদারনাথ মুক্তি পেতে চলেছে। এখন একজন বড় সেলিব্রিটির মতই প্রচারে ব্যস্ত সারা। 
কফি উইথ করনে বাবা সইফের সঙ্গে এসেছিলেন তিনি। সেখানে করিনা প্রসঙ্গে একেবারেই খোলামেলা উত্তর দিলেন বাবা–মেয়ে। সইফ জানিয়েছেন, যেদিন করিনার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয় সেদিন একটি চিঠি তিনি অমৃতাকে লিখেছিলেন।

সেই চিঠিটি আবার করিনাকে পড়তে দিয়েছিলেন তিনি। অমৃতাকে লেখা সইফের চিঠিটা পড়ে ভীষণ আনন্দিত হয়েছিলেন করিনা। এবং সেই চিঠি অমৃতার কাছে পৌঁছনোর পরেই সারা ফোন করে জানিয়েছিল, ‘‌আমি তোমার বিয়েতে যাচ্ছি’।
সারা জানিয়েছেন সইফ–করিনার বিয়েতে যাওয়ার জন্য অমৃতা নাকি সাজিয়ে দিয়েছিলেন তাঁকে। সারা জানিয়েছেন, ‘‌এটাই ভাল হয়েছে। মা–বাবা একসঙ্গে থাকলে সারাজীবন একটা দমবন্ধ করা পরিস্থিতি তাঁদের তাড়া করে বেড়াত। তাতে কেউ ভাল থাকত না। আমরাও অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়তাম। তার থেকে মা–বাবা আলাদা হয়ে গিয়েছেন। এখন দু’‌জনেই ভাল আছেন। সুখে আছেন। তাঁদের চারপাশের সকলেই ভাল আছেন আনন্দে আছেন। এটাই ঠিক হয়েছে।’‌ করিনা নাকি বিয়ের পর সারাকে বলেছিলেন, ‘‌আমি তোমার দ্বিতীয় মা হতে চাই না। তোমার মা একজন আছেন। তিনি সেরা। আমি তোমার বন্ধু হতে চাই।’‌ ‌

About editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com