ব্রেকিং নিউজ

অটুট বন্ধুত্বের কথা বলতে আসছে ‘গুড়িয়া যেখানে গুড্ডু সেখানে’

বন্ধুত্ব। এই শব্দের বোধহয় কোনও সংজ্ঞা হয় না৷ সংজ্ঞাহীন যে কোনও সম্পর্কেরই বোধহয় নাম বন্ধুত্ব৷ শব্দটির ব্যাখ্যা নানারকমভাবেই করা যেতে৷ স্কুলের টিফিন ভাগ থেকে মনের কথা শেয়ার সবকিছুই করতে পারেন বন্ধুরা৷ একসঙ্গে বেড়াতে যাওয়া, ঝগড়াঝাটি-সবই যেন বন্ধুত্বে হতেই পারে৷ বন্ধুত্বের সম্পর্কের না আছে কোনও ধর্ম আর না আছে কোনও বর্ণের ব্যবধান৷ তেমনই দুই বন্ধু গুড়িয়া এবং গুড্ডু।  সোমবারই তারা আসছে টিভির পর্দায়।

গুড়িয়া এবং গুড্ডু দু’জনেই অনাথ। উত্তরবঙ্গের এক অনাথ আশ্রমে বড় হয় তারা৷ ছোট থেকে একসঙ্গে বেড়ে উঠবে দু’জনে৷ সমাজে নানা শ্রেণির মানুষ বাস করেন৷ তাঁদের দৃষ্টিভঙ্গিও বিভিন্ন রকমের৷ এক্ষেত্রেও ঘটনা একইরকম৷ গুড়িয়া এবং গুড্ডুর সম্পর্ককে অনেকেই বাঁকা চোখেও দেখেন৷ কিন্তু কারও চোখরাঙানিতে কিছু যায় আসে না গুড়িয়া এবং গুড্ডুর৷ নিজেদের স্বপ্নপূরণে একসঙ্গে লড়াই করবে দু’জনে। হঠাৎই দুর্ঘটনায় অসুস্থ হয়ে পড়বে গুড়িয়া। সেই পরিস্থিতিতে বন্ধুকে তার পরিবারের সঙ্গে মিলিয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করে গুড্ডু। আদৌ সফল হবে গুড্ডুর চেষ্টা? গুড়িয়ার জন্য লড়াইয়ে মিলবে স্বীকৃতি? ধারাবাহিক যত এগোবে, ততই পরিষ্কার হবে এই প্রশ্নগুলির উত্তর৷

এই ধারাবাহিকে গুড়িয়া এবং গুড্ডুর চরিত্রে দুই নতুন খুদে শিল্পীকে দেখা যাবে৷ পৃথা এবং অভিরূপকে দর্শকরা আপন করে নেবেন বলেই আশা পরিচালক-প্রযোজকের। গায়িকা মিস জোজোকে এক্কেবারে অন্যরকম ভূমিকায় দেখা যাবে এই ধারাবাহিকে৷ সোমবার থেকে বন্ধুত্বের এই নতুন ধারাবাহিক ‘গুড়িয়া যেখানে গুড্ডু সেখানে’ দেখা যাবে স্টার জলসার পর্দায়।


জি বাংলায় ভূতুর কেরামতিকে এক সময় কাত হয়ে গিয়েছিলেন দর্শকেরা৷ বাঙালির ড্রয়িং রুমে পৌঁছে গিয়েছিল খুদে৷ গুড়িয়া এবং গুড্ডুও সকলের আপন হয়ে উঠবে বলেই মনে করছেন ‘গুড়িয়া যেখানে গুড্ডু সেখানে’-এর গোটা টিম৷  

About editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com