ব্রেকিং নিউজ

আজ আষাঢ়ের প্রথম দিন

আজ বর্ষা ঋতুর প্রথম দিন। বাঙালি জীবনে বর্ষা ঋতু বড় ভ‚মিকা পালন করে থাকে। তাই বাঙালি মন ও মননে আষাঢ়ের অনিবার্য উপস্থিতি লক্ষ করি। কালিদাস, রবীন্দ্র, নজরুল, জীবনানন্দ দাস থেকে আরম্ভ করে প্রত্যেক বাঙালি কবির রচনাতে অপরূপ মহিমাকে ধারণ করে বর্ষা আসে। বলা হয়, জীবনানন্দ দাসের রূপসী বাংলার খোলতাই রূপ আমরা পেয়ে যাই এ বর্ষা ঋতুতে।
মহাকবি কালিদাস তার ‘মেঘদূত’ কাব্যে আষাঢ়স্য প্রথম দিবসে বিরহকাতর  মেঘকে দূত করে কৈলাশে পাঠিয়েছিলেন তার প্রিয়ার কাছে।  সে বিরহ বার্তা মেঘদূত যেন সঞ্চারিত করে চলেছে প্রতিটি বিরহ কাতর হৃদয়ে, কাল থেকে কালান্তরে। তাই রবীন্দ্রনাথ কবি কালিদাসের উদ্দেশ্যে লিখেছিলেন কবিবর কবে কোন আষাঢ়ের মেঘপুণ্য দিবসে, লিখেছিলে মেঘদূত, মেঘমন্ত্র শ্লোক। শুধু কী তাই! আধুনিককালেও কবিরা বর্ষা ঋতুর বন্দনা করে লিখে চলেছে বর্ষার অপরূপ রূপের কথা। সম্প্রতি একজন তরুণ কবি লিখেছেন, বর্ষা এসেছে কদম ফুটেছে, মনে পড়ে তার চারু মুখ। এভাবে বাঙালি জীবন, বাংলা সাহিত্যে বর্ষা ঋতুর বন্দনা চলছে। বাঙালি হৃদয়ে প্রকৃতির অংশ হিসেবে ঋতু বির্বতনে অন্য ঋতুর চেয়ে বর্ষাকেই আন্তরিকভাবে গ্রহণ করে থাকে। বর্ষা মানব মনে বিচিত্র অনুভ‚তির জন্ম দিলেও হতদরিদ্র সাধারণ মানুষের জীবনে মহাদুর্যোগ ও দুর্বিপাক বয়ে আনে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এখন বর্ষা আর গ্রীষ্মকে আলাদা করে চিহ্নিত করা দিনে দিনে দুরুহ হচ্ছে। আষাঢ়-শ্রাবণ দুই মাস বর্ষাকাল। তবুও কর্মহীন দিবস রজনী, উদাস মনের তোলপাড়, তপ্ত দীর্ঘশ্বাস আর ‘দুজনে মুখোমুখি গভীর দুঃখে দুঃখী…বর্ষা ঋতু দেয় বাঙালি চেতনালব্ধ বহুমাত্রিক এক হৃদয়িক ভাষা। স্বাগতম আষাঢ়স্য প্রথম দিবস।

About editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com