ব্রেকিং নিউজ

হোটেলে উঠবেন না, খরচ বাঁচাতে মার্কিন সফরে অভিনব উদ্যোগ ইমরানের

দেশের অর্থসংকট কাটাতে ক্ষমতায় এসেই প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মোষ বিক্রি করেছিলেন তিনি৷ মন্ত্রী-আমলাদের জন্য বরাদ্দ খাবারের পরিমাণে কাটছাঁট করেছিলেন৷ এমনকী, মন্ত্রীদের ফার্স্টক্লাসের বদলে বিজনেস ক্লাসে যাতায়াতেরও নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ এবার বিদেশ সফরে গিয়ে আরও অভিনব পন্থায় অর্থ সঞ্চয়ের পথে হাঁটতে চলেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ সূত্রের খবর, আগামী ২১ জুলাই তিনদিনের মার্কিন সফরে গিয়ে কোনও বিলাসবহুল হোটেলে না থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইমরান৷ পরিবর্তে ওয়াশিংটনে অবস্থিত পাক রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে থাকবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। সোমবার এমন খবরই জানা গিয়েছে পাক সংবাদমাধ্যম সূত্রে৷ 

ইসলামাবাদ সূত্রে খবর, ওই তিনদিন ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত পাক রাষ্ট্রদূত আসাদ মজিদ খানের বাসভবন থাকবেন ইমরান খান। মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প-সহ অন্যান্য মার্কিন আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করতে যাবেন সেখান থেকেই৷ যদিও ইসলামাবাদের এই সিদ্ধান্তে কিছুটা হলেও মনক্ষুন্ন ওয়াশিংটনের৷ তাঁদের দাবি, যেকোনও দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা মার্কিন সফরে এলে, নিরাপত্তার সমস্ত দায়িত্ব সামলায় আমেরিকার গোয়েন্দা দপ্তর৷ তাঁরাই সেই রাষ্ট্রনেতার নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন৷ এবং প্রশাসন শহর নিয়ন্ত্রণ করে৷ এবার ইমরান খান পাক রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে থাকলে, সেই ব্যবস্থায় অনেকটাই অসুবিধা হবে বলে অনুমান মার্কিন বিশেষজ্ঞদের৷

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করবেন ইমরান খান৷ যে বৈঠকের দিকে চেয়ে রয়েছে নয়াদিল্লিও৷ ভারতের আশা, এই বৈঠক থেকে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তান কড়া বার্তা দেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷আমেরিকা, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড-সহ অন্যান্যদের সহায়তায় ইতিমধ্যেই জঙ্গি মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ৷ দীর্ঘ টালবাহানার পর যে প্রস্তাবকে সমর্থন করেছে পাকিস্তানের সব ঋতুর বন্ধু চিনও৷ এছাড়া গত বছরের জুন মাসেই পাকিস্তানকে ‘ধূসর তালিকাভুক্ত’ করেছিল এফএটিএফ। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পাকিস্তানকে ইতিমধ্যেই চরম হুঁশিয়ারি দিয়েছে ‘দ্য ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স’ (এফএটিএফ)। ইমরান প্রশাসন ও পাক সেনাকে নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিয়ে এফএটিএফ-এর কড়া বার্তা, আগামী চার মাসের মধ্যে রাষ্ট্রপুঞ্জের নির্ধারিত জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে ইসলামাবাদ ও রাওয়ালপিণ্ডিকে। না হলে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে পাকিস্তানকে।

About editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com